ব্রেকিং নিউজ

x


হাজীগঞ্জে বড় ভাইয়ের সম্পত্তি আত্মসাৎ করার জন্যই ছোট ভাই কর্তৃক ভাইয়ের ঘরে তালা

বুধবার, ০৩ মার্চ ২০২১ | ১১:২৫ অপরাহ্ণ

হাজীগঞ্জে বড় ভাইয়ের সম্পত্তি আত্মসাৎ করার জন্যই ছোট ভাই কর্তৃক ভাইয়ের ঘরে তালা

হাজীগঞ্জে আপন ছোট ভাই কর্তৃক বড় ভাইয়ের ঘরে তালা দিয়েছেন। এ নিয়ে বড় ভাইয়ের স্ত্রী ছালেহা বেগম বাদী হয়ে হাজীগঞ্জ থানায় অভিযোগ দায়ের করেন। ঘটনাটি ঘটেছে হাজীগঞ্জ পৌরসভার ৯নং ওয়ার্ড এনায়েতপুর গ্রামের আবুল খায়ের মাষ্টার বাড়ীতে।

ঘটনার সুত্রে জানাযায়, এনায়েতপুর গ্রামের মৃত ছিদ্দিকুর রহমানের ছেলে চাঁদপুর হাসান আলী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক আবুল খায়ের মাষ্টার এর মৃত্যুর তিনার রেখে যাওয়া সম্পত্তি আত্মসাৎ ও জোর পূর্বক দখলের পায়তারা করে তিনারই আপন ছোট ভাইগণ।
আবুল খায়ের মাষ্টার এর কোন সন্তান না হওয়ায় তিনি পার্শবর্তী এক পুত্রসন্তানকে দত্তক নেন। সেই পুত্র সন্তানকে তিনি লালন পালন করেন। বর্তমানে সেই পুত্র সন্তান আরিফুল ইসলাম তার মাকে নিয়ে একসাথে বসবাস করে আসছেন।

আবুল খায়ের মাষ্টার তিনি পৈত্রিক সম্পত্তিসহ প্রায় দু একর সম্পত্তির মালিক হন। কিন্তু তিনি চাকুরি জীবন শেষে অসুস্থ্য হওয়ার কারনে পৈত্রিক সম্পত্তি ও ক্রয়কৃত বহু সম্পত্তি বিক্রি করে যান। এমন কি তিনার মৃত্যুর পূর্বে তিনার ক্রয়কৃত সম্পত্তির মধ্যে ৮ সতাংশ সম্পত্তি পার্শবর্তী খলিলুর রহমানের কাছে বিক্রি করেন। কিন্তু সম্পত্তি বিক্রি করে রেজিষ্ট্রী করে দেয়ার পূর্বেই তিনি মৃত্যু বরণ করেন। যার কারনে খলিলুর রহমানের কাছে বিক্রি সম্পত্তি আর রেজিষ্ট্রী করা সম্ভব হয়নি।

এ নিয়ে খলিলুর রহমান প্রায়ই আবুল খায়ের মাষ্টারের দত্তক ছেলে আরিফুল ইসলাম ও স্ত্রী ছালেহা বেগমকে ঐ সম্পত্তি রেজিষ্ট্রী বা টাকা ফেরত দেয়ার জন্য চাপ প্রয়োগ করেন।
এ ছাড়াও আবুল খায়ের মাস্টার মৃত্যুর পূর্বে তার স্ত্রী ছালেহা বেগম ও দত্তক সন্তান আরিফুল ইসলামকে ১৭ সতাংশ সম্পত্তি অছিয়তনামা রেজিষ্ট্রী করে দেন।

তথ্যসুত্রে আরো জানাযায়, আবুল খায়ের মাষ্টার মৃত্যুর পূর্বে যে ৮ সতাংশ সম্পত্তি পার্শবর্তী খলিলুর রহমানের কাছে বিক্রি করেন, সে সম্পত্তি পরবর্তীতে স্ত্রী ছালেহা বেগম ও দত্তক সন্তান আরিফুল ইসলামকে দেয়া ১৭ সতাংশ সম্পত্তি থেকে ৮ সতাংশ সম্পত্তি খলিলুর রহমানকে দলিল মূলে রেজিষ্ট্রী করে দেয়া হয়।

এ নিয়ে আবুল খায়ের মাষ্টারের আপন ছোট ভাই, আবুল কালাম, সামছুল আলম, সেলিম ও মিজানুর রহমান ভাবী ছালেহা বেগম ও ভাতিজাকে প্রায়ই হত্যা ও ঘর বাড়ী পুড়িয়ে দেয়ার হুমকি দিয়ে আসছে। এমন এ বাড়ীতে তাদের কোন স্থান নেই বলে তাদের থেকে বের হয়ে যেতে বলে। এ নিয়ে স্থানীয় ভাবে বহুবার বৈঠক হলেও আবুল খায়ের মাষ্টারের আপন ছোট ভাই, আবুল কালাম, সামছুল আলম, সেলিম ও মিজানুর রহমান কোন কর্ণপাত না করে তারা ভায়ের সম্পত্তি আত্মসাৎ ও দখলের পায়তার অব্যাহত রেখেছে।

গত ২মার্চ সোমবার খলিলুর রহমান তার ক্রয়কৃত সম্পত্তির উপর মাটি কাটতে গেলে আবুল খায়ের মাষ্টারের আপন ছোট ভাই, সামছুল আলম ও মিজানুর রহমান খলিলুর রহমানকে মাটি কাটতে বাধা সৃষ্টি করে। এক পর্যায় তারা আবুল খায়ের মাষ্টারের বসতঘরে তালা মেরে ভাবী ও ভাতিজা আরিফুল ইসলামকে বের করে দেয়।

পরবর্তীতে আবুল খায়ের মাষ্টারের স্ত্রী ছালেহা বেগম বাদী হয়ে হাজীগঞ্জ থানায় অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযোগের প্রেক্ষিতে হাজীগঞ্জ থানার এসআই রুবেল ও সঙ্গীয় পুলিশ নিয়ে তালা ভেঙ্গে পেলে।

হাজীগঞ্জ থানা সুত্রে জানাযায়, বসতঘরে তালা লাগানোর বিষয়ে সত্যতা পাওয়া যায়। এবং বিষয়টি স্থানীয় ভাবে সমাধান না হলে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানানো হয়।

বাংলাদেশ সময়: ১১:২৫ অপরাহ্ণ | বুধবার, ০৩ মার্চ ২০২১

protidin-somoy.com |

Development by: webnewsdesign.com