ব্রেকিং নিউজ

x


হাজীগঞ্জে গৃহবধূর মৃত্যু নিয়ে ধুম্রজাল

মঙ্গলবার, ১৪ এপ্রিল ২০২০ | ৩:০৭ অপরাহ্ণ

হাজীগঞ্জে গৃহবধূর মৃত্যু নিয়ে ধুম্রজাল

চাঁদপুরের হাজীগঞ্জ মকিমাবাদে সাদিয়া ইসলাম সুপ্তি (২২) নামের এক গৃহবধূর গলায় ফাঁস দিয়ে রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। এ মৃত্যু নিয়ে ধুম্রজাল সৃষ্টি হয়েছে। গত ১৩ এপ্রিল সোমবার বিকেলে হাজীগঞ্জ পৌর এলাকার ৪ নং ওয়ার্ডের মুকিমাবাদ এলাকায় স্বামীর বাড়িতে এই ঘটনা ঘটে। তবে এই ঘটনা আত্মহত্যা না কি হত্যা, তা নিয়ে উভয় পরিবার থেকে একে পরকে পাল্টাপাল্টি অভিযোগ করেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

সাদিয়া ইসলাম সুপ্তি মতলব দক্ষিণ উপজেলার পৌর ১নং ওয়ার্ডের বাইশপুর গ্রামের সিদ্দিকুর রহমানের কন্যা। তার স্বামীর নাম তোফায়েল হোসেন। তাদের তাসকিয়া নামের দেড় বছরের এক কন্যা সন্তান রয়েছে। খবর পেয়ে সোমবার বিকেলে হাজিগঞ্জ থানা পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। পরে লাশ ময়নাতদন্তের জন্যে চাঁদপুন মর্গে প্রেরণ করা হয়।

নিহতের বড় ভাই রাসেল হোসেন জানায়, গত তিন বছর পূর্বে হাজিগঞ্জ এলাকার আনোয়ার হোসেনের পুত্র তোফায়েল হোসেন এর সাথে তার ছোটবোন সাদিয়ার ইসলাম সুপ্তির পারিবারিকভাবে বিবাহ হয়।

বিয়ের প্রথম দুই বছর ভালো কাটলো এরপর থেকেই তোফায়েলের সাথে সাদিয়ার পারিবারিক কলহ দেখা দেয়। তোফায়েল পরকীয়া প্রেম করতো বলে প্রায়ই দুজনের মাঝর বাকবিতণ্ডা হতো।

রাসেল আরো জানায়, ঘটনার দিন সোমবার বিকেল ৩টার দিকে সাদিয়ার শ্বশুরবাড়ি এলাকার ওয়ার্ড কাউন্সিলর ফোন করে জানায় যে, তার বোন গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে। খবর পেয়ে আমরা সেখানে ছুটে যাই এবং লাশ নিচে নামানো অবস্থায় দেখতে পাই।

এসময় সাদিয়ার শ্বশুরবাড়ির লোকেরা জানায় যে, সে ঘরের দরোজা বন্ধ করে ফ্যানের সাথে ওড়না পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করে। কিন্তু এই ঘটনা তারা আমাদেরকে ফোন করে জানায়নি কিংবা লাশ নামানোর সময় আমাদেরকে দেখায়নি। যার কারণে আমাদের সন্দেহ হচ্ছে যে সাদিয়ার শ্বশুরবাড়ির লোকেরাই তাকে হত্যা করে ফ্যানের সাথে ঝুলিয়ে রেখেছে।

এদিকে এ বিষয়ে সাদিয়া ইসলামের শ্বশুর বাড়ির লোকের সাথে কথা হলে তারা জানায়, বিয়ের পর থেকে এই দম্পতি বেশ সুখীভাবে জীবন-যাপন করে আসছিল। তাদের ঘরে একটি ফুটফুটে কন্যা সন্তান রয়েছে। কিন্তু কী কারণে সে আত্মহত্যা করল এই বিষয়টি আমরা জানি না। সাদিয়ার মৃত্যুতে আমরা নিজেরাই হতবাক হয়েছি।

শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত ১৪ ই এপ্রিল মঙ্গলবার দুপুরে ময়নাতদন্ত শেষর নিহতের পরিবারের কাছে লাশ দাফনের জন্যে হস্তান্তর করা হয়।

হাজীগঞ্জ থানা উপ-পরিদর্শক সালাউদ্দিন আহমেদ বলেন, ঘটনাস্থলে গিয়ে মৃতদেহের সুরতহাল রিপোর্ট করা হয়েছে। এই ঘটনায় থানায় একটি অপমৃত্যুর মামলা দায়ের করা হয়েছে।

হাজীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. আলমগীর হোসেন রনি জানান, মৃতদেহের সুরতহাল রিপোর্টে কোন প্রকার আঘাতের চিহ্ন পাওয়া যায়নি। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট আসলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

বাংলাদেশ সময়: ৩:০৭ অপরাহ্ণ | মঙ্গলবার, ১৪ এপ্রিল ২০২০

protidin-somoy.com |

Development by: webnewsdesign.com