ব্রেকিং নিউজ

x


মাঠে খেলনা ছুঁড়ে মারার এই অভিনব উদ্যোগ দারুণ সাড়া ফেলেছে।

রবিবার, ০৮ জানুয়ারি ২০২৩ | ৮:২৮ পূর্বাহ্ণ

মাঠে খেলনা ছুঁড়ে মারার এই অভিনব উদ্যোগ দারুণ সাড়া ফেলেছে।

ফুটবল মাঠে খেলনা বৃষ্টির কথা শুনেছেন কখনও? ম্যাচের বিরতিতে উপস্থিত দর্শকরা গ্যালারি থেকে ছুড়ে মারছে টেডি বিয়ার, পুতুলসহ কাপড় ও স্টাফে তৈরি নানাবিধ খেলনা; এমন দৃশ্যের দেখা মিলেছে লা লিগার

মাঠে খেলনা ছুঁড়ে মারার এই অভিনব উদ্যোগ দারুণ সাড়া ফেলেছে।

গত ৩০ ডিসেম্বর লা লিগার ম্যাচে রিয়াল বেতিস মুখোমুখি হয়েছিল অ্যাথলেটিক বিলবাওয়ের। গোলশূন্য ড্রয়ে শেষ হওয়া সে ম্যাচের মধ্যবিরতিতে স্টেডিয়ামে অবতারণা হয় দারুণ এক দৃশ্যের। বিলবাওয়ের মাঠ স্তাদিও বেনিতো ভিয়ামারিনে উপস্থিত দর্শকরা খেলার মধ্যবিরতিতে ছুড়ে মারতে থাকেন হাজার হাজার খেলনা। গ্যালারিতে উপস্থিত দর্শকদের খেলনা ছুড়ে মারার এই উৎসব রীতিমতো ‘খেলনা’ বৃষ্টির সূচনা করে।

ফুটবল মাঠে নানা সময়ে খেলোয়াড়দের গায়ে এটা-ওটা ছুড়ে মারার গল্প প্রায়ই শোনা যায়। তবে এই ‘খেলনা’ বৃষ্টি মোটেই কোনো হিংসাত্মক মনোভাব থেকে করা হয়নি। বরং এটি লা লিগার ক্লাবটির দারুণ এক ঐতিহ্যই বলা চলে। মূলত বড়দিন উদ্‌যাপনের অংশ হিসেবেই এটা করা হয়ে থাকে।

২০১৮ সাল থেকে রিয়াল বেতিস এই খেলনা ছুড়ে মারার উৎসব পালন করে আসছে। ঐতিহ্য অনুযায়ী দর্শকরা বড়দিনের আগে বা পরের ম্যাচে কাপড় ও স্টাফের তৈরি নরম খেলনা নিয়ে স্টেডিয়ামে উপস্থিত হয়। টেডি বিয়ার, মিকি মাউস আবার কোনোটা কাপড়ের তৈরি পুতুল। হরেক রকম খেলনা নিয়ে উপস্থিত হয় দর্শকরা। এরপর ম্যাচের মধ্যবিরতিতে মাঠে ছুড়ে মারা হয় এসব খেলনা।

তবে নিয়ম অনুযায়ী এসব খেলনা স্টাফড বা কাপড়জাতীয় উপাদানে তৈরি হতে হবে, ভেতরে কোনো ধরনের ব্যাটারি থাকা যাবে না এবং ৩৫ সেন্টিমিটারের বেশি বড় হওয়া যাবে না।

এই আয়োজনের পেছনে আছে মহৎ উদ্দেশ্য। বড়দিনে যেসব সুবিধাবঞ্চিত শিশু খেলনা পাওয়া থেকে বঞ্চিত হয়, মূলত তাদের মুখে হাসি ফোটতেই এসব খেলনা উপহার হিসেবে পাঠানো হয়। বেতিস-বিলবাও ম্যাচে এবার সংগৃহীত খেলনার পরিমাণ প্রায় ১৪ হাজার বলে জানিয়েছে ক্লাবটি। এসব খেলনা তাদের ফাউন্ডেশনের মাধ্যমে সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের জন্য কাজ করে এমন সংগঠনের কাছে হস্তান্তর করা হবে, যা পৌঁছে যাবে সেভিলের সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের হাতে।

ক্লাবটি এই উৎসব শুরু করার পর থেকে প্রতিবছরই আয়োজন করা হয়ে থাকে। শুধু করোনা মহামারির কারণে ২০২০ সালে পালিত হয়নি উৎসবটি। রিয়াল বেতিসের এই দারুণ উদ্যোগটি এরই মধ্যে গোটা স্পেনেই আলোড়ন তুলেছে। অন্যান্য ক্লাবও এই উদ্যোগের ভূয়সী প্রশংসা করছে।

বাংলাদেশ সময়: ৮:২৮ পূর্বাহ্ণ | রবিবার, ০৮ জানুয়ারি ২০২৩

protidin-somoy.com |

Development by: webnewsdesign.com