ব্রেকিং নিউজ

x


বিয়ে বাড়ি থেকে করোনা আক্রান্ত ১০০ জন, বরের মৃত্যু

বুধবার, ০১ জুলাই ২০২০ | ৬:২৬ অপরাহ্ণ

বিয়ে বাড়ি থেকে করোনা আক্রান্ত ১০০ জন, বরের মৃত্যু

 

করোনাভাইরাস দিনকে দিন বাড়ছে ভারতে। কোনো সমাধানই কাজ করছে না। এতো সংক্রমণের মাঝেও তেমন একটা গুরুত্ব দেয়া হচ্ছে না করোনাকে। মানুষ ইচ্ছে মত ঘুরছে, অনুষ্ঠান করছে, চলাচল করছে। ফলে তার ভয়ংকর পরিণতিও ভোগ করছে। এমনই ভয়ংকর পরিণতি দেখা গেলো ভারতের পাটনার একটি বিয়ে অনুষ্ঠানকে কেন্দ্র করে।

বিয়ে খেতে গিয়ে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ১০০ জন মানুষ। শুধু তাই নয়, বিয়ে করতে যাওয়া বরের মৃত্যু হয়েছে করোনায়।

হিন্দুস্থান টাইমস বলছে, কয়েকদিন আগে পাটনার সাব ডিভিশনের অন্তর্গত পালিয়াগঞ্জের একটি বাড়িতে বিয়ে অনুষ্ঠান হয়। সেখানে ৩৫০ এর অধিক মানুষ যোগ দেয়। তাদের সংস্পর্শ থেকে প্রথমে ১৫ জনের শরীরে করোনা পজিটিভ পাওয়া যায়। পরে ৩৫০ জনের নমুনা পরীক্ষা করে দেখা যায় ১০০ জনই আক্রান্ত।

এমনটাই নিশ্চিত করেছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের একজন কর্মকর্তা। বিয়ে বাড়ি থেকেই সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়েছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা জানান, গুরুগ্রামে একটি সংস্থায় সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার হিসেবে কাজ করতেন বর। বিয়ের জন্য গত মাসের শেষের দিকে বিহারে বাড়িতে ফেরেন। তিলক অনুষ্ঠানের পর তার করোনার উপসর্গ ধরা পড়ে। গত ১৫ জুন অর্থাৎ বিয়ের দিন প্রচন্ড জ্বর হয়। সেজন্য বিয়ে পিছিয়ে দিতে চাইলে পরিবারের সদস্যরা জোরাজুরি করেন। বাধ্য হয়ে জ্বরের ওষুধ খেয়ে বিয়ে করতে যান। দু’দিন পরই তার শারীরিক অবস্থার দ্রুত অবনতি হয়। পাটনার হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পথেই তার মৃত্যু হয়।

এরইমধ্যে কেউ একজন ফোন করে পুলিশ-প্রশাসনকে পুরো বিষয়টি জানান। তারপরই প্রকৃত তথ্য সামনে আসে।

পরিস্থিতির ভয়াবহতা অনুধাবন করে গত সপ্তাহে তিনদিন সেই গ্রামে বিশেষ ক্যাম্প খোলা হয়। আপাতত ওই এলাকা লকডাউন করা হয়েছে। স্যানিটাইজেশনের কাজ চলছে।

এখনো সেখানে দ্রুত করোনা ছড়িয়ে পড়ছে। সোমবার পর্যন্ত মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৬৯৯। মৃত্যু হয়েছে পাঁচজনের।

ভারতে কয়েকদিন ধরে প্রতিদিন ১৮ হাজারের অধিক করোনা রোগী শনাক্ত হচ্ছে। গত ২৪ ঘণ্টায়ও আক্রান্ত হয়েছে ১৮ হাজার ২৫৮জন। মোট করোনা আক্রান্ত হয়েছে ৫ লাখ ৮৫ হাজার ৭৯২ জন। আর মোট মৃত্যু হয়েছে ১৭ হাজার ৪১০ জনের।

বাংলাদেশ সময়: ৬:২৬ অপরাহ্ণ | বুধবার, ০১ জুলাই ২০২০

protidin-somoy.com |

Development by: webnewsdesign.com